শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪

ফেসপ্যাক ব্যবহারে এড়িয়ে চলা দরকার যে পাঁচ ভুল

প্রকাশিত: ০৪:২২, ৩১ মার্চ ২০২৪ | ১৮

রূপচর্চার অংশ হিসেবে আমরা বিভিন্ন ফেসপ্যাক ব্যবহার করে থাকি। ঘরোয়াভাবে তৈরি করা ফেসপ্যাকের পাশাপাশি দোকানেরগুলোও অনেকে ব্যবহার করি। একেক সমস্যার জন্য একেক ধরনের ফেসপ্যাক ব্যবহার করি আমরা। তবে সব পরিশ্রমই বৃথা যাবে যদি নিয়ম না মেনে এটি ব্যবহার করেন।

আমরা অনেকেই না বুঝে এটি ব্যবহার করে এরপর ভেবে বসে থাকি যে এগুলো কোনো কাজেরই না। নিয়ম মেনে ত্বকের সমস্যার ধরন বুঝে এসব ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে উপকার পাওয়া যায়। আসুন জেনে নিই এগুলো ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোন ভুলগুলো আমাদের এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। 
১. আমরা অনেকেই প্যাচ টেস্ট না করে সরাসরি ফেসপ্যাক ব্যবহার করে ফেলি।

যার জন্য অ্যালার্জিক সমস্যা দেখা দেয় অনেকের ত্বকে, ফলে প্যাকটাই খারাপ ভাবতে থাকেন। আসলে আমাদের একেকজনের ত্বক একেক ধরনের, প্রত্যেকের ত্বকের সেনসিটিভিটি আলাদা। তাই এগুলোর যে উপাদান একজনের জন্য ভালো তা আরেকজনের ত্বকে রি-অ্যাকশন করতেই পারে। সে জন্য আমাদের নতুন কোনো ফেসপ্যাক ব্যবহারের পূর্বে অবশ্যই প্যাচ টেস্ট করে নেওয়া প্রয়োজন।
 
২. ঘনঘন ফেসপ্যাক ব্যবহার করা উচিত নয়। অনেকেই আছি যারা দ্রুত ভালো ফলাফল পাওয়ার আশায় প্রায় প্রতিদিনই ফেসপ্যাক ব্যবহার করে থাকি। এতে করে হীতে বিপরীত হতে পারে। ওভার এক্সফোলিয়েশনের কারণে স্কিন ব্যারিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এ ছাড়া ত্বকের সেনসিটিভিটি বেড়ে গিয়ে ত্বক অতিরিক্ত শুষ্কও হয়ে যেতে পারে।

এ জন্য সপ্তাহে দুই দিনের বেশি ফেসপ্যাক ব্যবহার করা যাবে না। 
৩. অপরিষ্কার ত্বকে ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে সেটির উপকার না পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কারণ ত্বকে জমে থাকা পূর্বে ব্যবহৃত ক্রিম, মেকআপ ইত্যাদির জন্য ফেসপ্যাকের নির্যাস ত্বকে প্রবেশ করতে পারেনা। জমে থাকা উপাদানগুলোর সঙ্গে অনেক সময় ফেসপ্যাক মিশে উপকারের চেয়ে অপকারই বেশি করে। তাই ফেসপ্যাক ব্যবহারের পূর্বে ত্বক অবশ্যই ভালো করে পরিষ্কার করে নিতে হবে। 

৪. ফেসপ্যাক ত্বকে লাগিয়ে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করে এরপর ধুয়ে ফেলতে হয়। নির্দিষ্ট সময় পার করে আরো বেশি সময় রাখলে ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক ও জ্বালাপোড়া করতে পারে। এ জন্য নির্দিষ্ট সময় পর ফেসপ্যাক ধুয়ে ফেলাই ভালো। 

৫. অনেক সময় বেশি লাভের আশায় অনেক কিছু একসাথে মিশিয়ে ফেসপ্যাক বানাই আমরা। এখানে একটা ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে তা হলো, কিছু কিছু জিনিস একসাথে ব্যবহার করা যায় না। এতে লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি হবে। যেমন অ্যালার্জি, ত্বক জালাপোড়া বা ব্রণ ইত্যাদি সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই স্বল্প উপাদানের মাঝে ফেসপ্যাক বানানোই ভালো। খেয়াল রাখতে হবে, উপাদানগুলো একে অপরের সাথে সামঞ্জস্য আছে কি না। 

Mahfuzur Rahman

Publisher & Editor