শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪

যে দুটি খাবার ছাড়া ঈদ যেন অপূর্ণ থেকে যায়, জেনে রাখুন রেসিপি

প্রকাশিত: ০৬:৫০, ০৩ এপ্রিল ২০২৪ | ১৮

ঈদে মিষ্টিমুখের আয়োজনেও আজকাল নতুন কিছু দেওয়ার চেষ্টা থাকে। অচেনা সেসব পদের ভিড়ে একটা চেনা স্বাদ দিয়ে অতিথিকে নস্টালজিয়ায় আক্রান্ত করতে পারেন। ঐতিহ্যবাহী তেমন ২টি মিষ্টি খাবারের রেসিপি দিয়েছেন শাহানা পারভীন

উপকরণ

সেমাই ২৫০ গ্রাম, চিনি ২ কাপ, ঘি আধা কাপ, এলাচি ৪টি, দারুচিনি ৪ টুকরা, কিশমিশ ও বাদামকুচি ১ টেবিল চামচ। 

প্রণালি

সস প্যানে ২ টেবিল চামচ ঘি দিয়ে মৃদু আঁচে ভালো করে সেমাই ভেজে তুলে রাখুন। ২ কাপ চিনিতে আধা কাপ পানি ঢেলে জ্বাল দিয়ে শিরা তৈরি করে রাখুন। সস প্যানে ঘি ঢেলে দারুচিনি, এলাচি ও সেমাই দিয়ে চুলায় বসান। তাতে চিনির শিরা দিয়ে একটু নাড়াচাড়া করতে হবে। পাঁচ মিনিট ঢেকে মৃদু আঁচে দমে রাখুন। ঘি ওপরে উঠে এলে কাঁটাচামচ দিয়ে একটু নেড়ে সেমাই আলগা করে দিতে হবে। শেষে কিশমিশ ও বাদাম ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

উপকরণ

দুধ ২ লিটার, পোলাওয়ের চাল আধা কাপ, বাদামকুচি–কিশমিশ ২ টেবিল চামচ, দারুচিনি ২ টুকরা, এলাচি ৩টি, লবণ এক চিমটি (না দিলেও চলবে) ও চিনি ১ কাপ।

প্রণালি

পোলাওয়ের চাল ধুয়ে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। হাত দিয়ে কচলে চাল আধভাঙা করে নিন। এবার চাল ও দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে মাঝারি আঁচে জ্বাল দিন। মাঝেমধ্যে নাড়ুন। চাল সেদ্ধ হলে ঘন ঘন নাড়ুন, যেন নিচে লেগে না যায়। একটু পর আঁচ কমিয়ে দিন। অল্প অল্প চিনি দিয়ে নাড়ুন। সব চিনি দেওয়া হলে আরও চার–পাঁচ মিনিট মৃদু আঁচে চুলায় রেখে নাড়ুন। বাদাম ও কিশমিশ দিন। ফিরনি চুলা থেকে নামিয়ে ঠান্ডা না হওয়া পর্যন্ত নাড়ুন। না হলে দুধের সর ওপরে উঠে যাবে আর নিচের দিকের পায়েস পানসে লাগবে। শেষে পেস্তাবাদাম ও কিশমিশ ছড়িয়ে ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা পরিবেশন করুন।

Mahfuzur Rahman

Publisher & Editor