বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩

জানা গেল পরীর মধ্যরাতের স্ট্যাটাসের রহস্য

প্রকাশিত: ০৩:৩০, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ২২

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরীমণি। শনিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে ফেসবুকে দেওয়া স্ট্যাটাসে জানিয়েছেন রোববার (১৭ সেপ্টেম্বর) দিনটি তার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কেনো গুরুত্বপূর্ণ সে বিষয়ে কিছু জানায়নি তখন। নতুন করে আবার কী ঘটতে যাচ্ছে তার জন্য রোববার দিনভর উন্মুখ হয়ে ছিলেন অনুরাগীরা। অথচ টুশব্দটি করেননি পরী। দিনভর চুপ থেকে অবশেষে সোমবার (১৮ সেপ্টেম্বর) প্রথম প্রহরে গুরুত্বপূর্ণ খবরটি দিলেন পরীমণি। জানালেন সরকারি অনুদানের একটি সিনেমায় যুক্ত হয়েছেন তিনি।

সোমবার দিবাগত রাতে নিজের ফেসবুকে কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেন পরীমণি। সেখানে উঠে এসেছে নতুন ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার মূহুর্ত। এ ছাড়া সিনেমা সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে একটি ছবিতে দেখা যায় নায়িকাকে। ক্যাপশনে লিখেছেন, এটা ডোডোর গল্প। পরীমণির এ পোস্ট থেকে স্পষ্ট ‘ডোডোর গল্প’ নামের অনুদানের ছবিতে যুক্ত হয়েছেন তিনি। এটি পরিচালনার দায়িত্বে আছেন রেজা ঘটক।

২০২১-২২ অর্থবছরে সরকারি অনুদান পায় ডোডোর গল্প। এর প্রযোজনার দায়িত্বে আছেন নাজমুল হক ভূঁইয়া। এর আগে শনিবার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুকে পরীমণি লিখেছিলেন, ‘কালকের দিনটা আমার জীবনের অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন! আল্লাহ ভরসা।’

এবার জানা গেল কেন দিনটা ছিল পরীমণির জন্য গুরুত্বপূর্ণ! ‘ডোডোর গল্প’ সিনেমায় কাজল চৌধুরীর চরিত্রে অভিনয় করছেন পরীমণি। নতুন সিনেমা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অনেক সুন্দর একটি গল্পে কাজ করতে যাচ্ছি। এই দিনটি আমার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশন আমার নিঃশ্বাসের সঙ্গে মিশে আছে। এ অঙ্গনের মানুষেরা আমার আরেকটি পরিবার। সেটা ছাড়া দীর্ঘ দুটি বছর থাকতে হয়েছে। এ সময়টা আমার পরিবারকে ভীষণ মিস করেছি।

অবশেষে অপেক্ষার পালা শেষ। এই গল্পের জন্য চার মাসের অপেক্ষা এবং চরিত্রের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করা। প্রতিটি দিন চরিত্র এবং স্ক্রিপ্ট নিয়ে ভেবেছি। যার কারণে ‘ডোডোর গল্প’ আমার কাছে অনেক বেশি স্পেশাল। কারণ, অনেকগুলো গল্পের মধ্যে এটি অনেক ভেবে চিন্তে নির্বাচিত করেছি। আশা করি, আমার দর্শকদের জন্য ভালো কিছু অপেক্ষা করছে। যোগ করলেন পরীমণি।

সিনেমার চুক্তিবদ্ধ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অভিনেতা আমিরুল হক চৌধুরী, খায়রুল আলম সবুজ, শংকর শাওজাল, আহসান হাবিব নাসিম, নেওয়াজ, মনিরা মিঠু ও নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী প্রমুখ।

Mahfuzur Rahman

Publisher & Editor